নিজেস্ব সংবাদদাতা,পুরুলিয়ায়া :মানুষ দেখেছে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সঙ্গে ছিলেন বলে তার কি ক্ষমতা ছিল।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সঙ্গে ছিলেন বলে তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হয়েছিলেন  ।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সঙ্গে ছিলেন বলে রেল মন্ত্রী হয়েছিলেন I  এখন তিনি বিজেপি তে আছেন তাই তিনি রাজ্যসভার সাংসদ হতে পারেননি। এখন তিনি ভুঁইফোড় নেতা হয়েছেন I বুধবার পুরুলিয়ার বলরামপুর সরাই ময়দান থেকে বিজেপির জনবিরোধী নীতির প্রতিবাদে তৃণমূল এর প্রতিবাদ সভা থেকে এভাবে মুকুল রায়ের কে কটাক্ষ করেন অনগ্রসর দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়I গত 2 নভেম্বর এই ময়দান থেকেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হন বিজেপি নেতা মুকুল রায়I এদিন সেই সভার পাল্টা সভা করে তৃণমূল I গত 2 নভেম্বর বিজেপির সভা থেকে মুকুলবাবু  তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন তৃণমূলের হয় যা কিছু কাজকর্ম হয় , জেলা শাসক ও জেলা পুলিশ সুপার করেন বলে কটূক্তি করেন I  সরাসরি জেলাশাসককে জেলা সভাপতিও বলতে কসুর করেননিI  বিজেপি নেতা  মুকুল রায়  জেলা শাসক ও জেলা পুলিশ সুপারকে অবমাননাকর কথা বলেও কটুক্তি করতে ছাড়েননি মুকুল রায়I  আর তার এই মন্তব্যের জেরে রাজ্য রাজনীতিতে ঝড় ওঠেI  আইনি পদক্ষেপ নেয় জেলা শাসক ও জেলা পুলিশ  I চরম বিরোধিতা করে এদিন বলরামপুরে ওই স্থানে সভা করে তৃণমূল কংগ্রেস নেতা ও মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো ও অন্যান্য বক্তারা বিজেপির  কঠোর সমালোচনা করেন  I সরাসরি চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সত্যতা প্রমাণ এর দাবি তোলেন I  বক্তারা দলের পক্ষে দলের স্বপক্ষে  মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন প্রশাসন ও তৃণমূলের সঙ্গে কোনো মিল নেই প্রশাসন প্রশাসনের সঙ্গে নিরপক্ষে হয়ে কাজ করেI  তৃণমূল সাংগঠনিকভাবে নিজের কাজ করেI এদিন মন্ত্রী আজি বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কেউ একহাত নেন এবং কেন্দ্রীয় নীতির

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Blogger দ্বারা পরিচালিত.